রিবা আন্তর্জাতিক পুরস্কারে ‘বিশ্বের সেরা নতুন ভবন’ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলাদেশের সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল।

যুক্তরাজ্যের রয়্যাল ইনস্টিটিউট অব ব্রিটিশ আর্কিটেক্টস (রিবা) প্রকাশিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) এক বিজ্ঞপ্তিতে সংস্থাটি জানায়, অসাধারণ নকশা ও সামাজিক প্রভাব বিবেচনায় বাংলাদেশের ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালের ভবনকে রিবা আন্তর্জাতিক পুরস্কারে ভূষিত করা হচ্ছে।

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঝুঁকিতে থাকা দক্ষিণ বাংলার জলো পরিবেশে গড়ে তোলা হাসপাতাল স্থাপনাটিকে একটি ‘মানবিক স্থাপত্য’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন পুরস্কারের জুরি বোর্ড।

স্থানীয় প্রকৌশলী কর্তৃক স্থানীয়ভাবে তৈরি নির্মাণসামগ্রী ব্যবহার করে ভবনটি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে প্রচুর আলো-বাতাস চলাচল করতে পারে। এছাড়া বিদ্যুতের সর্বনিম্ন ব্যবহার নিশ্চিত করার পাশাপাশি পানি ধরে রাখার জন্য জলাধার রাখা হয়েছে। নিশ্চিত করা হয়েছে হাসপাতালের নিরাপত্তা, সহজে যাতায়াত ব্যবস্থা।

বিজ্ঞপ্তিতে রিবা জানায়, কম বাজাটের মধ্যেও স্থাপত্য কীভাবে প্রত্যন্ত গ্রামীণ এলাকাকে শক্তিশালী ও সক্ষম করে তুলতে পারে তার উৎসাহব্যাঞ্জক উদাহরণ হচ্ছে এই ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল।

৮০ শয্যার ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালের নকশা করেছেন স্থপতি কাশেফ মাহবুব চৌধুরী, যিনি এর আগে আগা খান স্থাপত্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন। তার স্থাপত্য প্রতিষ্ঠান আরবানা ভবনটি নির্মাণ করেছেন।

পুরস্কার প্রাপ্তির পর কাশেফ চৌধুরী বলেন, আমি উৎসাহিত কারণ পুরস্কার আমাদের আরো বেশি অনুপ্রাণিত করতে পারবে। আমরা মানবতা এবং প্রকৃতি উভয়ের জন্য শৈল্পিক একটি স্থাপত্যে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

জুরির চেয়ারম্যান ওডিল ডেক বলেন, প্রকল্পটি মানবতা এবং সুরক্ষার একটি স্থাপত্যকে ধারন করে, এটি গুরুত্বপূর্ণ বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জের সঙ্গে প্রাসঙ্গিক।

প্রসঙ্গত, সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিতে ২০১৮ সালের জুলাই মাসে ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল চালু হয়। ২০১৩ সালে নকশা করার চার বছরে এর নির্মাণকাজ শেষ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *